নারিকেবাড়িয়া মাইকিং করে দুই গ্রামবাসীর সংঘর্ষ, আহত ৩

186

 

বাঘারপাড়া (যশোর) প্রতিনিধি : যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার নারিকেবাড়িয়া বাজারে মাইকিং করে দুই গ্রামবাসী সংঘর্ষে লিপ্ত হয়েছে। শুক্রবার বিকালে সংঘর্ষের এ ঘটনায় ৩ জন গুরুতর আহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে ২ জনকে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ও অপর একজনকে মাগুরার শালিখা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন আরও ৮/১০ জন।
যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ২ জন হলেন বাঘারপাড়া উপজেলার ক্ষেত্রপালা গ্রামের আতর আলী বিশ্বাসের ছেলে শওকত হোসেন (৪৮) ও খোকন বিশ্বাসের ছেলে জামিরুল ইসলাম (২০)। শালিখা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি আহতের নাম জানা যায়নি।
স্থানীয়রা জানান, গত মঙ্গলবার বাঘারপাড়ার নারকেলবাড়িয়া বাজারে ক্ষেত্রপালা গ্রামের মিঠু ও জুবায়ের বসে ছিলেন। এ সময় নারকেলবাড়িয়া গ্রামের জুলহাস ধুমপানের পর সিগারেটের শেষ অংশ ফেলতে গিয়ে তাদের দুই জনের গায়ে লাগে। এ নিয়ে সেই সময় উভয়ের মধ্যে তর্কবিতর্ক, এক পর্যায়ে ধাক্কাধাক্কি হয়। এ ঘটনার জের ধরে এলাকায় গত কয়েকদিন চাপা উত্তেজনা বিরাজ ছিল। শুক্রবার নারকেলবাড়িয়া ও ক্ষেত্রপালা গ্রামবাসী মাইকিং করে লাঠিসোটা, দা, কুড়াল নিয়ে বের হয়ে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এ সময় নারকেলবাড়িয়া পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা উভয় গ্রামবাসীকে নিবৃত করার চেষ্টা করে। কিন্তু উত্তেজিত জনতা মারামারিতে লিপ্ত হলে ৩ জন গুরুতর জখম হয়। আহত হয়েছেন আরও অন্তত ৮/১০ জন।
তবে বাঘারপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মঞ্জুর আলম জানিয়েছেন, স্থানীয় কয়েকজন গ্রুপ ছবি তুলেছিলেন। সেই ছবি একজন ফেসবুকে দেয়। এ নিয়ে আপত্তি তুলেছিল তাদের মধ্যে কেউ কেউ। এই নিয়ে গোলযোগের সূত্রপাত। শুক্রবার দুই গ্রামবাসী লাঠিসোটা নিয়ে মারামারিতে লিপ্ত হলে পুলিশ পরিস্থিতি শান্ত করেন। তবে বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত আছে।