এক মণ স্বর্ণ নদীতে ফেলে সটকে পড়ল চোরাচালানীরা

162

 

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি : ভারতে পাচারের সময় চুয়াডাঙ্গা সীমান্ত থেকে প্রায় এক মণ ওজনের ৩২০টি স্বর্ণের বার জব্দ করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ-বিজিবি। বুধবার দুপুরে জেলার দামুড়হুদা উপজেলার নাস্তিপুর সীমান্তের মাথাভাঙ্গা নদী থেকে স্বর্ণের চালানটি জব্দ করা হয়।
তবে এসময় কোনো পাচারকারীকে আটক করতে পারেনি বিজিবি।
চুয়াডাঙ্গা-৬ বিজিবি সূত্র জানায়, চুয়াডাঙ্গা থেকে ভারতে স্বর্ণের একটি চালান যাবে এমন গোপন তথ্যে বিজিবির একটি দল বুধবার সকাল থেকে নাস্তিপুরসহ আশাপাশে অবস্থান নেয়।
চুয়াডাঙ্গা-৬ বিজিবির পরিচালক ইমাম হাসান জানান, দুপুর ৩টার দিকে নাস্তিপুর সীমান্তের ৮০নং মেইন পিলারের কাছে অজ্ঞাত তিনজনকে দেখতে পেয়ে বিজিবি সদস্যরা তাদের চ্যালেঞ্জ করেন।
এ সময় বিজিবি সদস্যদের উপস্থিতি টের পেয়ে ওই তিন চোরাচালানী তিনটি ব্যাগ মাথাভাঙ্গা নদীতে ফেলে সাঁতরে ভারতের অংশে ঢুকে পড়ে। পরে বিজিবি সদস্যরা মাথাভাঙ্গা নদীতে তল্লাশি চালিয়ে চোরাচালানীদের ফেলে যাওয়া তিনটি ব্যাগ উদ্ধার করে।
খবর পেয়ে বিকালে কুষ্টিয়া সেক্টর কমান্ডার কর্নেল আরশাদ হোসেনসহ বিজিবির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে পৌঁছান।
পরে গণমাধ্যম কর্মীসহ স্থানীয়দের সহায়তায় চোরাচালানীদের ফেলে যাওয়া ব্যাগ খুলে ৩২০টি স্বর্ণের বার উদ্ধার হয় যার ওজন ৩৭ কেজি।
কুষ্টিয়া সেক্টর কমান্ডার কর্নেল আরশাদ হোসেন জানান, উদ্ধারকৃত স্বর্ণের বারের আনুমানিক বাজার মূল্য প্রায় ১৫ কোটি টাকা। তবে চোরাচালানীরা ভারতের অংশে ঢুকে পড়ায় তাদেরকে আটক করা সম্ভব হয়নি বলে দাবি করেন তিনি।

Previous articleভারততে যৌনহয়রানি থেকে বাঁচতে শিশুদের যা শেখাচ্ছে
Next articleসাতক্ষীরায় হত্যার দায়ে স্বামীর যাবজ্জীবন