সেই বৃদ্ধা মায়ের দায়িত্ব নিলেন আ.লীগ নেতা লিটু : ৩ ছেলে-মেয়েকে আটক

182

 

লোহাগড়া (নড়াইল) প্রতিনিধি : নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার কচুবাড়িয়া গ্রামে বৃদ্ধা মায়ের ভরণ-পোষণ দিতে অস্বীকার করে রাতের অন্ধকারে বাঁশ বাগানের নিচে রাস্তায় ফেলে যাওয়া ৮৬ বছরের বৃদ্ধার ভরণ-পোষণের দায়িত্ব নিলেন ওই উপজেলার চেয়ারম্যান ও লোহাগড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পদক সৈয়দ ফয়জুল আমীর লিটু।
নড়াইলে পরিবারের ‘বোঝা’ মনে করে অশীতিপর মা পুজোলী বেগমকে বাঁশ বাগানে ফেলে দেয়ার ঘটনায় তার ৩ ছেলে-মেয়েকে আটক করেছে পুলিশ।
বৃহস্পতিবার রাতে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।
আটকরা হলেন, পুজোলী বেগমের বড় ছেলে ডাহু শেখ, ছোট ছেলে রাবু শেখ ও বড় মেয়ে কুলসুম বেগম।
মেঝ ছেলে বাবু শেখ ও তার স্ত্রীকে আটকে অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। তবে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে তার ছেলে-মেয়েরা সটকে পড়েন।
ঘটনাটি শোনার পর শুক্রবার সকালে সৈয়দ ফয়জুল আমীর লিটু ওই বৃদ্ধা মাকে দেখতে যান। এসময় ওই বৃদ্ধা মায়ের জন্য তিনি পাঁচ হাজার টাকা নগদ ও প্রতিমাসে তিন হাজার টাকা দেবেন বলে প্রতিশ্রুতি দেন।
এ বিষয়ে লিটু বলেন, এই বৃদ্ধা আমরা মায়ের মত। আমি ওই বৃদ্ধার স্বজনদের কাছে দাবি করেছিলাম তাকে আমার মায়ের কাছে নিয়ে যাবো এবং সারা জীবন মায়ের মতো তার সেবা করবো। এতে ওই বৃদ্ধার স্বজনেরা আপত্তি জানালে প্রতিমাসে ওই বৃদ্ধার ভরণ-পোষণের জন্য প্রতিমাসে তিন হাজার টাকা করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিই।
তিনি আরো বলেন, মায়ের পায়ের নিচে সন্তানের বেহেস্ত। যারা মায়ের সঙ্গে এমন নেক্কারজনক কাজ করতে পারে তাদের শাস্তি পেতেই হবে। এসময় তিনি প্রশাসনের দৃষ্টি আর্কষণ করে অপরাধীদের দ্রুত আটক করে আইনের আওতায় আনার জন্য অনুরোধ জানান।
উল্লেখ্য, গত বুধবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে ৮৬ বছরের বৃদ্ধা মায়ের দায়িত্ব নিতে অস্বীকার করে রাস্তায় ফেলে রেখে যায় সন্তানেরা। পরদিন ভোরে স্থানীয়রা ওই বৃদ্ধাকে উদ্ধার করে পুলিশের ভয় দেখিয়ে বড় ছেলে ডাকু শেখের বাড়িতে রেখে আসে।

Previous articleবেনাপোলে ৫টি সোনার বারসহ পাচারকারী আটক
Next articleপ্রধানমন্ত্রীর দুটি আন্তর্জাতিক পুরস্কার গ্রহণ