এমপি রণজিৎকে মনোনয়ন না দেয়ার দাবিতে একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি বরাবর স্মারকলিপি

354

 

কল্যাণ রিপোর্ট : একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবির বরাবর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে যশোর-৪ আসন থেকে এমপি বাবু রণজিৎ কুমার রায়সহ সারাদেশে যুদ্ধাপরাধী ও তাদের সহযোগী ও পৃষ্ঠপোষকদের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রদান না করা প্রসঙ্গে এক স্মারকলিপি দিয়েছে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের সাক্ষী ও যশোর-৪ নির্বাচনী এলাকার মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের মানুষরা।

স্মারকলিপিতে তারা বলেছেন, কুখ্যাত যুদ্ধাপরাধী আমজাদ হোসেন মোল্যার বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনালে মামলা দায়ের এবং গ্রেফতার পরবর্তী সময় থেকে অদ্যাবধি কুখ্যাত রাজাকার আমজাদের পক্ষীয় বাহিনীর সন্ত্রাসীরা স্থানীয় মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের মানুষদের, ট্রাইব্যুনালের সাক্ষী ও তাদের পরিবার পরিজনদের এবং আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনালে আমজাদ হোসেনের যুদ্ধাপরাধ মামলায় তদন্ত সহায়তাকারী ও তাদের পরিবার পরিজনদের নামে একের পর এক হয়রাণিমূলক ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলা হামলা করে আসছে। বর্তমানে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ৮৮ যশোর-৪ আসনে বর্তমান সংসদ সদস্য বাবু রণজিৎ কুমার রায় স্থানীয় যুদ্ধাপরাধী আমজাদ হোসেন মোল্যার প্রধান পৃষ্ঠপোষক হিসেব চিহ্নিত হওয়ার পরও তার পক্ষীয়রা এই নির্বাচনীয় এলাকায় জোরেশোরে প্রচারণা চালিয়ে বেড়াচ্ছে যে, তিনি এবারও এই আসন থেকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাচ্ছেন এটা নিশ্চিত। এ অবস্থায় আমরা আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ ট্রাইবুন্যালের সাক্ষী ও স্বাধীনতার স্বপক্ষের মানুষ এমপির পোষ্য বাহিনীর তান্ডবের ভয়ে ভীত সন্ত্রস্ত। আমরা আশংকা করছি যে, আবারও যদি বর্তমান এমপি মনোনয়ন পান তবে আমাদের জীবনাশংকা রয়েছে। কেননা ইতিমধ্যে এই বাহিনী আমাদের উপর বহুবার হামলা করেছে এবং একাধিক ষড়যন্ত্রমূলক মামলা করেছে। এমতাবস্থায় আমরা জাতীয় সংসদের ৮৮ যশোর-৪ আসনে বাবু রণজিৎ কুমার রায়সহ দেশের কোন আসনেই যেন যুদ্ধাপরাধী ও তাদের সহযোগী এবং পৃষ্ঠপোষকরা কোনভাবেই আওয়ামী লীগের মনোনয়ন না পান সে বিষয়ে আপনার একান্ত ও কার্যকরী দৃষ্টি কামনা করছি। একই সাথে আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনালের সাক্ষী ও তাদের পরিবার পরিজনদের নামে এমপি বাবু রণজিৎ কুমার রায়-এর পৃষ্ঠপোষকতায় তার পোষ্য বাহিনীর সদস্যদের দ্বারা হওয়া ষড়যন্ত্রমূলক মামলাগুলো প্রত্যাহারের বিষয়েও সরকার ও প্রশাসন যাতে পদক্ষেপ গ্রহণ করে সে বিষয়ে তারা একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতির দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে। একই সাথে স্মারকলিপিতে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের সাক্ষী ও তদন্ত কাজে সহায়তাকারীদের নামে ও তাদের পরিবার পরিজনদের নামে এমপি রণজিৎ কুমার রায়ের পৃষ্ঠপোষকতায় তার লোকদের দ্বারা করা ষড়যন্ত্রমূলক মামলাও প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন।
স্মারকলিপিতে আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনালের সাক্ষী মো. আলাদ্দীন বিশ্বাস, মো. এহিয়ার রহমান, আ, হক মোল্যা, খলিলুর রহমান ওরফে খোকন বিশ্বাস, ডা. বিএম রুহুল আমিনসহ জাতীয় পার্টি যশোর জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক এড. জহুরুল হক জহির, বন্দবিলা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সব্দুল হোসেন খান, জহুরপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান দীন মোহাম্মদ ওরফে দিলু পটোয়ারী, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ও যুবলীগ নেতা নাজমুল ইসলাম কাজল, ছাত্রলীগ বাঘারপাড়া উপজেলা শাখা সভাপতি বায়েজিদ হোসেন, ছাত্রলীগ বাঘারপাড়া উপজেলা সাধারণ সম্পাদ;ক বিএম শাহাজালাল, জাপা নেতা আইয়ুব হোসেন স্বাক্ষর করেছেন।

Previous articleভোটের পরে সংখ্যা লঘুদের ওপর আর হামলা করতে দেওয়া হবে না : শাহরিয়ার কবির
Next articleঅর্জুন আর একা নন, বিয়ের জন্য প্রস্তুত!