নৌকায় ভোট দিন : শেখ হাসিনা

433

কল্যাণ ডেস্ক : বিএনপির চক্রান্ত থেকে জনগণের ভোটের অধিকার রক্ষা করতে জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার (২০ ডিসেম্বর) দুপুরে সুধাসদন থেকে নড়াইলের নির্বাচনী জনসভায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে দেওয়া বক্তব্যে তিনি এ আহ্বান জানান।
রাজশাহীর পর ভিডিও কনফারেন্সে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা যুক্ত হন নড়াইলের জনসভায়। ইনজুরির কারণে নিজের নির্বাচনী এলাকায় যেতে না পারলেও সুধাসদন থেকে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে যুক্ত ছিলেন ক্রিকেট তারকা ও নড়াইল-২ আসনের প্রার্থী মাশরাফি বিন মোর্তাজা (মর্তুজা)।
পরে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে গাইবান্ধা ও জয়পুরহাট জেলার নির্বাচনী জনসভাতেও বক্তব্য রাখেন ও প্রার্থীদের পরিচয় করিয়ে দেন।
দেশের জন্য ক্রিকেট তারকা মাশরাফি বিন মুর্তজাকে ‘হীরার টুকরো’ অ্যাখ্যায়িত করে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘একটা হীরের টুকরো নড়াইল থেকে আমরা নিয়ে এসে আবারও নড়াইলকেই দিয়েছি। ওরা আমাদের এক একটা হীরার টুকরা। কাজেই আশা করি, নড়াইলবাসী তাকে নৌকায় ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করবে।’
এ সময় নড়াইল-২ আসনের নৌকার প্রার্থী মাশরাফি বিন মর্তুজা আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার পাশের আসনে উপস্থিত ছিলেন।
আওয়ামী লীগ সভাপতি বক্তব্যে শেষ করে নৌকার প্রার্থীদের পরিচয় করিয়ে দেন এবং বক্তব্য দেওয়ার সুযোগ করে দেন। এরপর তিনি মাশরাফিকে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার সময় বলেন, ‘আমাদের প্রার্থী মাশরাফি বিন মুর্তজা একটু কথা বলবে আপনাদের। ও তো যেতে পারেনি—খেলায় ব্যস্ত ছিল। কারণ ওকে আমি বলে দিয়েছি, তোমার ইলেকশন তোমাকে ভাবতে হবে না। সেই দায়িত্ব আমি নিচ্ছি, তুমি খেলায় মনোযোগ দাও। আমাদের জয়ী করো, সে খেলায় আমাদের বিজয়ী করেছে।’
‘খেলতে গিয়ে আমাদের জয় এনে দিতে গিয়ে তো পায়ে ব্যথা পেয়েছে, অসুস্থ হয়েছে’-বলেও উল্লেখ করেন তিনি।
এরপর মাশরাফি বিন মতুর্জা বিজয়ের মাসে জাতির পিতাসহ মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে স্মরণ করেন। পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে স্নেহ করার ধন্যবাদ জানান নড়াইলবাসীর সেবা করার সুযোগ দেওয়ার জন্য।
তরুণ সমাজের প্রতি আহ্বান জানিয়ে মাশরাফি বলেন, ‘আপনারা স্বাধীনতার পক্ষে থাকুন। নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর ওপর আস্থা রাখবেন। তাহলে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনাদের সমৃদ্ধ, সুন্দর এবং আরও শক্তিশালী বাংলাদেশ উপহার দেবে-ইনশাল্লাহ।’
এ ছাড়াও নিজের অনুপস্থিতে স্থানীয় নেতা-কর্মীরা সমন্বয় করে তাকে বিজয়ী করার জন্য নৌকার পক্ষে কাজ করছেন সে জন্যও ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন মাশরাফি।
তিনি আরও বলেন, ‘আপনারা জানেন, আমার পায়ে একটু ব্যথা ছিল। আমার চিকিৎসা চলছে। আমি শেষ করে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ইনশাল্লাহ আপনাদের সঙ্গে যোগ দেবো। নড়াইল বাসীর কাছে বলতে চাই, সময় কিছুটা কম থাকলেও আমি সবার সঙ্গে দেখা করার চেষ্টা করবো। আমি চেষ্টা করবো—সবার সঙ্গে সমস্ত জায়গায় দেখা করার। যদি আমি সময় স্বল্পতার কারণে না পারি, আপনারা ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন।’
‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনি নিজেই নড়াইলের এমপি ছিলেন। আপনারা নড়াইলের সবকিছু চেনা এবং জানা’-বলেও উল্লেখ করেন এই ক্রিকেট তারকা।
মাশরাফি বলেন, ‘বিগত ১০ দশ বছরে আপনার উন্নয়নের যে জোয়ার উঠেছে, আমি আশা করি এটা সামনে আরও বৃদ্ধি পাবে এবং আমরা নড়াইলবাসী আপনার উন্নয়নের অঙ্গীকার হতে পারবো বলে আশা করছি।’
নড়াইলবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘আমি আপনাদেরই সন্তান। ওখানেই বড় হয়েছি। আপনারা যদি আমাকে যোগ্য মনে করেন অবশ্যই আপনারা বিবেচনা করবেন এবং নৌকা মার্কায় ভোট দেবেন।’
মাশরাফির বক্তব্য শেষে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আসলে খেলতে গেলে সবসময় প্লেয়ারদের একটু ইনজুরি হয়। আর সেই সময় তাদের চিকিৎসা নেওয়াটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কারণ এরা তো, আমাদের বলতে গেলে আমাদের এক একটা হীরের টুকরো। একটা হীরের টুকরো নড়াইল থেকে আমরা নিয়ে এসেছি, আবার নড়াইলকে দিলাম। কাজেই আমি আশা করি, নড়াইলবাসী তাকে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করবে।’
তিনি বলেন, একদিকে বিএনপির কোনো প্রচার-প্রচারণায় নেই, নেতারা নির্বাচন কমিশনে প্রতিদিন নালিশ করে, অন্যদিকে তারা নির্বাচন বানচালের চক্রান্ত করে।
‘বিএনপি নিজেরা নিজেরা মারামারি করে, আওয়ামী লীগের ঘাড়ে দায় চাপাচ্ছে,’ যোগ করেন শেখ হাসিনা।
আসন্ন নির্বাচনে প্রার্থী মনোনয়নে বিএনপির ব্যাপক আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগ করে আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, প্রতিটি আসনের বিপরীতে তিন-চারজন করে প্রার্থী মনোনয়ন দিয়ে বিএনপির মনোনয়ন বাণিজ্য করেছে।
‘অতীতে বিএনপি দুর্নীতি, মানি লন্ডারিং, অস্ত্র চোরাচালানের মাধ্যমে, অর্থ আত্মসাৎ মনোনয়ন বাণিজ্য এবং এতিমের টাকা চুরির মাধ্যমে অর্জিত টাকা তারা এখন নির্বাচনে ব্যয় করছে এবং এটাই তাদের চরিত্র।’
জনগণের কাছে নৌকায় ভোট চেয়ে বঙ্গবন্ধুকন্যা বলেন, ‘বিএনপি জামাতের কাছ থেকে অর্থ নিন আর নৌকা মার্কায় ভোট দিন’ এটাই এখনকার শ্লোগান।’
আওয়ামী লীগ সভাপতি গত দুই মেয়াদে তার সরকারের ব্যাপক উন্নয়ন কার্যক্রম বাস্তবায়নের কথা তুলে বলেন, দেশব্যাপী ব্যাপক উন্নয়ন এখন দৃশ্যমান হয়েছে।
উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখা, স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর উদযাপনে আরও একবার নৌকায় ভোট চান আওয়ামী লীগ শেখ হাসিনা।
ভিডিও কনফারেন্সে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে সুখী সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ায় নৌকা মার্কায় ভোট দিতে নিজ এলাকার জনগণের প্রতি আহ্বান জানান মাশরাফি।

Previous articleআলী নগরের কেচ্ছা: সেকালের সতীদাহ এবং সম্রাট শাজাহান
Next articleভারতের নতুন হাইকমিশনার রিভা গাঙ্গুলি

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here