ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে মাঠে ডিসি, মেয়র অস্ট্রেলিয়ায়

0
724
ব্যক্তিগত সফরে অস্ট্রেলিয়ায় মেয়র (বামে) ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে ব্যস্ত জেলা প্রশাসক

সাতক্ষীরা জেলা প্রতিনিধি : ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে দিনরাত মাঠে কাজ করছে সাতক্ষীরার জেলা প্রশাসন। ডেঙ্গুর লার্ভা ধ্বংসের জন্য কখনো রাস্তার পাশে, কখনো ডোবা, আবার কখনো বাড়ি বাড়ি অভিযান চালান জেলা প্রশাসক (ডিসি) মোস্তফা কামাল। জলাবদ্ধতা নিরসনেও নিয়েছেন কার্যকরী পদক্ষেপ।
এদিকে পৌরবাসীর দুর্ভোগের কথা চিন্তা না করে মেয়র তাসকিন আহম্মেদ চিশতি ব্যক্তিগত সফরে অস্ট্রেলিয়ায়, যা চরমভাবে ক্ষুব্ধ করেছে শহরবাসীকে। জনদুর্ভোগ ও দায়িত্বহীনতার কথা তুলে ধরে সাতক্ষীরা সচেতন নাগরিক কমিটির সদস্য ও নাগরিক আন্দোলন মঞ্চের নেতা অ্যাডভোকেট ফাহিমুল হক কিসলু জানান, জনপ্রতিনিধি হিসেবে জনগণের যে সেবা করার কথা পৌর মেয়র তা করেন না। শহরে পানি নিষ্কাশনের কোনো ড্রেনেজ ব্যবস্থা নেই। যাও আছে সেগুলো দিয়ে পানি নিষ্কাশন হয় না, পরিণত হয়েছে ডেঙ্গু তৈরির কারখানা। জনপ্রতিনিধিদের অবহেলা ও দায়বদ্ধতার এত অভাব যে তারা নিজেদের সুবিধা নিয়েই সার্বক্ষণিক ব্যস্ত থাকেন।
তিনি আরও বলেন, পৌরসভায় বাজেট থাকলেও গত এক দশকে আমরা কখনো মশা নিধনে কোনো পদক্ষেপ নিতে দেখিনি। সম্প্রতি ডেঙ্গু সারাদেশে মহামারি আকার ধারণ করলে সরকারের নির্দেশনায় স্প্রে করা হয়। জেলা প্রশাসক যখন রাতদিন মাঠে পরিশ্রম করছেন ডেঙ্গু ও জলাবদ্ধতা নিরসনে, তখন জনপ্রতিনিধির ভূমিকা পালন না করে পৌর মেয়র অস্ট্রেলিয়ায়। এ থেকেই স্পষ্ট যে, তিনি কতটা জনসেবায় নিজেকে নিয়োজিত রাখেন।
সাতক্ষীরা পৌরসভার কাউন্সিলর জাহাঙ্গীর হোসেন কালু জানান, জলাবদ্ধতা ও ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে আমরা যখন ব্যস্ত সময় পার করছি তখন মেয়র তাসকিন আহম্মেদ চিশতি ব্যক্তিগত সফরে অস্ট্রেলিয়ায়। এই মুহূর্তে তিনি এ সফরে না গেলেও পারতেন।
সিভিল সার্জন ডা. আবু শাহীন জানান, জেলায় এ পর্যন্ত ৪৭২ জন ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত করা হয়েছে। সাতক্ষীরা সদর হাসপাতাল, মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ বিভিন্ন স্থানে ৫৩ জন ডেঙ্গু রোগী চিকিৎসাধীন। এছাড়া বাকিরা চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন। উন্নত চিকিৎসার জন্য অন্যত্র রেফার্ড করা হয়েছে কয়েকজনকে। ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে সাতক্ষীরা স্বাস্থ্য বিভাগ একযোগে কাজ করছে।
এ বিষয়ে পৌরসভার সচিব সাইফুর রহমান বলেন, মেয়র তাসকিন আহম্মেদ চিশতি নিয়মনীতি মেনে মন্ত্রণালয় থেকে অনুমোদন নিয়েই ব্যক্তিগত সফরে অস্ট্রেলিয়া গেছেন। ৪ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত তিনি ছুটিতে থাকবেন।
তিনি আরও জানান, জেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে সাতক্ষীরা পৌরসভার নয়টি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের সমন্বয়ে কমিটি গঠন করা হয়েছে। যারা মশক নিধনের জন্য একযোগে কাজ অব্যাহত রেখেছেন। এছাড়া মেয়র দেশে না থাকলেও তিনি সার্বক্ষণিক ইন্টারনেটের মাধ্যমে যোগাযোগ রেখে নির্দেশনা দিচ্ছেন। সে অনুযায়ী কার্যক্রম চালানো হচ্ছে। তবে কত দিনের সফরে তিনি অস্ট্রেলিয়া গেছেন তাৎক্ষণিক জানাতে পারেননি সচিব।
ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণ ও জলাবদ্ধতা নিরসনে সাতক্ষীরায় কার্যকরী পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে জানিয়ে জেলা প্রশাসক এস এম মোস্তফা কামাল বলেন, ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে সরকারি বেসরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী, রাজনৈতিক নেতারা একযোগে কাজ করছেন। এছাড়া তিনটি ধাপে ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে জেলা প্রশাসন। বর্তমানে বাড়ি বাড়ি গিয়ে অভিযান পরিচালিত হচ্ছে।
তিনি বলেন, ডেঙ্গুর লার্ভা ধ্বংস করতে সচেতনতামূলক প্রচারাভিযান অব্যাহত রয়েছে। স্বাস্থ্য বিভাগও একযোগে কাজ করছে। সেই সঙ্গে জনপ্রতিনিধিদেরও সম্পৃক্ত করা হয়েছে। তারাও কাজ করছেন। তবে কোনো জনপ্রতিনিধির বিরুদ্ধে কাজে অবহেলার অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
জেলা প্রশাসক জানান, সাতক্ষীরার জলাবদ্ধতা নিরসনের জন্য ইজারা দেয়া জেলার সব খাল ও পানি নিষ্কাশনের জায়গার ইজারা বাতিল করা হয়েছে। অবৈধ দখল উচ্ছেদ কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে।

LEAVE A REPLY