ভারতীয় সেনাদের রাতের তান্ডবের বর্ণনা দিলেন কাশ্মীরিরা

107

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : চলতি বছরের ১০ আগস্ট রাতে কাশ্মীরের দক্ষিণাঞ্চলে ভারতীয় সেনাবাহিনী বশির আহমেদের বাড়িতে প্রবেশ করে। এরপর তাকে ধরে নিয়ে গিয়ে দফায় দফায় বেধড়ক পেটানো হয়। পরে আহত অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন ৫০ বছর বয়সী বশির।
বশির বলেন, সেনারা মূলত আমার ভাইকে খুঁজতে এসেছিল। সে বিক্ষোভে অংশ নিয়েছিল। কিন্তু তাকে না পেয়ে আমাকে তুলে নিয়ে যায় তারা। এরপর দফায় দফায় নির্মমভাবে মারধর করে।
তিনি আরো বলেন, সেনাবাহিনীর ক্যাম্পে নিয়ে গিয়ে তিনজন সেনা মিলে আমাকে ততক্ষণ ধরে মারধর করেছে, যতক্ষণ আমি জ্ঞান না হারিয়ে ফেলি। আমার সারা শরীর ক্ষত-বিক্ষত করে দিয়েছে তারা।
তিনি আরো বলেন, এরপর ১৪ আগস্ট সেনাবাহিনী আবারো আমাদের বাড়িতে আসে। তারা আমাদের খাবার-দাবার সব নষ্ট করে ফেলে। আমাদের বাড়িতে থাকা চাল আর আটাতে তারা কেরোসিন মিশিয়ে দিয়েছে।
কাশ্মীরের কয়েকটি গ্রামের শতাধিক মানুষ অ্যাসোসিয়েটেড প্রেসের রিপোর্টারকে জানিয়েছেন, ভারতীয় সেনাবাহিনীর নির্যাতনের কথা। তারা সবাই বলছেন, গত ৫ আগস্টের পর ভারতীয় সেনাবাহিনীর নির্মম নির্যাতনের কথা।
তাদের অভিযোগ, সেনাবাহিনী বেধড়ক মারধরের পাশাপাশি ইলেকট্রিক শকও দিয়েছে। এমনকি নোংরা খাবার খেতে এবং ময়লাযুক্ত পানি পান করতেও বাধ্য করেছে। এছাড়া বাড়িতে খাবার নষ্টের পাশাপাশি নারীদের তুলে নিয়ে গিয়ে বিয়ের প্রস্তাবও দিয়েছে। শত শত পুরুষকে আটক করে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।
তবে বার্তা সংস্থা এপি এসব অভিযোগর ব্যাপারে কাশ্মীরের ভারতীয় সেনার হেডকোয়ার্টারে যোগাযোগে করে। সেখানকার মুখপাত্র সাফ জানিয়ে দেন, এসব অভিযোগ একেবারেই ভিত্তিহীন।

Previous articleচিত্রায় ঐতিহ্যবাহী নৌকাবাইচ
Next articleধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের দায়ে নেটফ্লিক্স বন্ধের দাবি

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here