আলীনগরের কেচ্ছা

93

 

“নিজাম ও ভারত সরকার”

কিউ জেড নাজু
পৃথিবীর সবচেয়ে বড় চাঁদা ও দান।
সালটা ছিল ১৯৬২. সময়টা ছিল ভারত-চিন যুদ্ধের।
চিন হঠাৎ করেই ভারতীয় সেনাবাহিনীর উপর হামলা করে।
ভারত সরকার কিছু বুঝতে পারার আগেই চিন হামলার গতি বাড়িয়ে দেয়।
যুদ্ধের সময় ভারতের অর্থনৈতিক অবস্থা
খারাপের থেকেও বেশি খারাপ হয়ে যায়।
ঠিক তার ৩-বছর পর মানে- (১৯৬৫.সাল)

ভারতের তৎকালিন প্রধানমন্ত্রী লাল বাহাদুর শাস্ত্রী
হায়দ্রাবাদের নিজাম মীর উসমান আলী’র কাছে অর্থনৈতিক সাহায্য চায়।
ভারতের পরিস্থিতি খারাপ দেখে…

সেই দান করার মূহুর্তের ছবি। ( সংগৃহীত)

হায়দ্রাবাদের নিজাম মীর উসমান আলি পৃথিবীর
সবচেয়ে বড় চাঁদা ভারত সরকারকে দান করেন-১৯৬৫ সালে!
সেই চাঁদার পরিমাণ শুনলে অবাক হবেন।
চাঁদার পরিমাণ ছিল- “৫০০০ (পাঁচ হাজার) কেজি সোনা” ও তৎকালীন ৭৫
লক্ষ টাকা। সেই চাঁদার বর্তমান পরিমাণ হবে-
১ কেজি সোনা = ৩৮.০০০০০/- (আত্রিশ লক্ষ টাকা)। তারমানে
এক’শ কেজি সোনা = ৩৮.০০০০০০০/-(৩৮কোটি
টাকা) তারমানে হাজার কেজি সোনা = ৩৮০,০০০০০০০/- (৩৮০কোটি টাকা)। এখন পাঁচহাজার কেজি সোনা মানে- ৩৮০,০০০০০০০/- ৫০০০
কেজি সোনা = ১৯০০০০, ০০০০০০০/- (এক লক্ষ্য নব্বই হাজার কোটি টাকা)
তারমানে তিনি দান করেছিলেন- “পাঁচ হাজার কেজি সোনা”
বা “এক লক্ষ্য নব্বই হাজার কোটি টাকা”। তিনি আরও দান করেছিলেন ৭৫ লক্ষ টাকা ক্যাস। এই ৭৫ লক্ষ টাকার বর্তমান মূল্য হবে- আনুমানিক শত কোটি টাকা।
কিন্তু দুঃখের বিষয় হল- ১৯৬২ সালের ভারত-চিন যুদ্ধের কথা ইতিহাসে শুনতে পাই,
কিন্তু এই মহান মানুষটার- ১৯৬৫ সালে পৃথিবীর সবচেয়ে বড় দান -এর কথা শুনতে পাই না।
লেখক : অল-ইন্ডিয়া ভ্রম্যমান প্রতিনিধি দৈনিক কল্যাণ।

LEAVE A REPLY