টিসিবির পেঁয়াজ কিনতে জেলায় জেলায় উপচে পড়া ভিড়

60

কল্যাণ ডেস্ক : মূল্যবৃদ্ধির ঊর্ধ্বগতির লাগাম টেনে ধরতে সরকারের উদ্যোগে জেলায় জেলায় পেঁয়াজ বিক্রি শুরু করেছে ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি)। ৪৫ টাকা কেজি দরে এককেজি করে এই পেঁয়াজ কিনতে ভিড় করছেন শত শত মানুষ। বিভিন্ন পেশাজীবীদেরও লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে। পেঁয়াজের ট্রাকের সামনে ভিড় সামলাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। কিন্তু এরপরও বাজারে পেঁয়াজের দামের ওপর কোনও প্রভাব পড়েনি।
এদিকে চাহিদার চেয়ে সরবরাহ কম থাকায় অনেককেই খালি হাতে ফিরে যেতে হয়েছে। এছাড়াও এই পেঁয়াজের মান নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে কোথাও কোথাও। তবে স্থানীয়রা টিসিবির মাধ্যমে পেঁয়াজ বিক্রি অব্যাহত রাখার আহ্বান জানিয়েছেন।

যশোর : পেঁয়াজের সরবরাহ স্বাভাবিক ও ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করতে সোমবার দুপুরে যশোরের খোলাবাজারে পেঁয়াজ বিক্রি শুরু করেছে টিসিবি। শহরের দড়াটানা মোড়ে দুপুরে এই পেঁয়াজ বিক্রি করা হয়।
টিসিবির ডিলার মাহফুজুর রহমান জানান, প্রতিদিন এক টন করে তিন দিনে তিন টন পেঁয়াজ বিক্রি করা হবে। এই পেঁয়াজ তুরস্ক থেকে আমদানি করা।
এদিকে খোলাবাজারে কম দামে পেঁয়াজ বিক্রির খবরে দড়াটানায় ভিড় করে সাধারণ মানুষ।
ক্রেতা আমির হোসেন বলেন, ‘এই পেঁয়াজ কয়দিন ঘরে রাখা যাবে তা নিয়ে সংশয় আছে। পেঁয়াজে হাল্কা চাপ দিলে পানি বের হচ্ছে।’
জেলা কৃষি বিপণন অধিদফতরের বাজার কর্মকর্তা সুজাত হোসেন খান জানান, টিসিবি থেকে যশোরে পেঁয়াজ বিক্রি শুরু হয়েছে। প্রতি কেজি ৪৫ টাকা। সুষ্ঠুভাবে যাতে সাধারণ মানুষ পেঁয়াজ কিনতে পারেন সেজন্য তদারকি করা হচ্ছে।
তিনি জানান, যশোরে ২৩ জন টিসিবি ডিলার আছেন। তাদের অনেকেই পেঁয়াজ বিক্রির জন্য আবেদন করেছেন। পর্যায়ক্রমে তাদের মাধ্যমেও খোলাবাজারে পেঁয়াজ বিক্রি করা হবে।
এদিকে যশোরের বাজারে পুরনো পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ২২০ টাকা করে। নতুন মুড়িকাটা পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১৮০ টাকায়।

সাতক্ষীরা : পেঁয়াজের বাজার স্থিতিশীল করতে সাতক্ষীরায় রোববার থেকে ৪৫ টাকা দরে টিসিবি’র পেঁয়াজ বিক্রি শুরু হয়েছে। সোমবার সকাল ১০ টায় শহরের আব্দুর রাজ্জাক পর্কের খোলা বাজারে এই পেঁয়াজ বিক্রির উদ্বোধন করেন সাতক্ষীরার জেলা প্রশাসক এস এম মোস্তফা কামাল। তা কিনতে সকাল থেকে সেখানে দীর্ঘ লাইন ধরে দাঁড়িয়েছেন বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। পেঁয়াজগুলো আকারে বড় হলেও খুচরা ও পাইকারি বাজারের থেকে দাম কম হওয়ায় সকাল থেকেই টিসিবির ডিলারের ট্রাক ঘিরে লম্বা লাইন দেখা গেছে। লাইনে দাঁড়িয়ে দীর্ঘ সময় অপেক্ষার পর পেঁয়াজ কিনতে পারায় সন্তোষ প্রকাশ করছেন অনেক ক্রেতা। পাশাপাশি খুচরা ও পাইকারি বাজার স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত টিসিবির এই কার্যক্রম অব্যাহত রাখার দাবি জানিয়েছেন অনেকে।
সাতক্ষীরা কদমতলা বাজারের টিসিবি ডিলার মেসার্স রাসেল এন্টার প্রাইজের মালিক শেখ সিরাজুল ইসলাম জানান, তুরস্ক থেকে আমদানি করা প্রথম চালান থেকে খোলা বাজারে ৪৫ টাকা দরে বিক্রির জন্য মোট ৩ হাজার কেজি পেঁয়াজ পেয়েছেন, যা প্রতিদিন এক হাজার কেজি করে বিক্রির জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এটি দেওয়া শেষ হলে দ্বিতীয় দফায় আবারও খোলা বাজারে বিক্রির জন্য পেঁয়াজ পাবেন বলেনও জানিয়েছেন তিনি।

মাগুরা : মাগুরায় ট্রেডিং করর্পোরেশন অব বাংলাদেশ-টিসিবি’র উদ্যোগে সোমবার থেকে ৪৫ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রি শুরু হয়েছে। মাগুরা জেলা প্রশাসন কার্যালয়ের নেজারত ডেপুটি কালেক্টর রাজীব চৌধুরীর বরাত দিয়ে জানান, টিসিবি’র খুলনা আঞ্চলিক কার্যালয়ের জন্য বরাদ্দ তিন টন পেঁয়াজ সোমবার থেকে বুধবার পর্যন্ত বিক্রি করা হবে।
পেঁয়াজ কিনতে আসা মাগুরা সদর উপজেলার আঠারখাদা গ্রামের রিজিয়া খাতুন বরেন, ‘বাজারে পেঁয়াজের দাম বেশি। তাই সরকারিভাবে ৪৫ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ কিনতে পারায় আমি অনেক খুশি।’
এর আগে, জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে পেঁয়াজ বিক্রির উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক আশরাফুল আলম। এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান পঙ্কজ কুণ্ডু, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আফাজ উদ্দিনসহ অন্যান্যরা। এ সময় শহরের বিভিন্ন এলাকার অনেক মানুষ পেঁয়াজ কিনতে ভিড় করেন।

নড়াইল : নড়াইলে টিসিবি থেকে পেঁয়াজ প্রতিকেজি ৪৫ টাকা মূল্যে বিক্রি শুরু করা হয়েছে।
নড়াইল-২ আসনের এমপি মাশরাফি বিন মুর্তজা সোমবার দুপুরে নড়াইল জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্বরে খোলা ট্রাকে এ পেঁয়াজ বিক্রির উদ্বোধন করেন।
প্রতিদিন জনপ্রতি এক কেজি করে এক টন পেঁয়াজ বিক্রি করা হবে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।
এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুবাস চন্দ্র বোস, জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা, পুলিশ সুপার মো. জসিমউদ্দিন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ইয়ারুল ইসলাম প্রমুখ।
সাধারণ মানুষ এ পেঁয়াজ পেয়ে বেশ খুশি দেখা গেছে।

বাগেরহাট : আদালতের আইনজীবীরাও লাইনে দাঁড়িয়ে টিসিবির পেঁয়াজ কিনেছেন। পেঁয়াজ বিক্রির খবর পেয়ে পাশের আদালতপাড়ায় বিভিন্ন কাজে আসা শতশত নারী-পুরুষ পেঁয়াজ কিনতে লাইনে দাঁড়িয়ে পড়েন।
তবে টিসিবির উদ্যোগে খোলা বাজারে পেঁয়াজ বিক্রি শুরু হলেও স্থানীয় বাজারে তার কোনও প্রভাব পড়েনি বলে অভিযোগ সাধারণ ক্রেতাদের।
ক্রেতারা বলছেন, টিসিবি কোনও প্রচার ছাড়াই সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে খোলা ট্রাকে করে আদালত চত্বরে পেঁয়াজ বিক্রি শুরু করে। সোমবারও বাজারে দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ২৪০ টাকা থেকে ২৫০ টাকা দরে।
বাগেরহাট আদালতে মামলার কাজে আসা রামপাল উপজেলার মিল্লিকের বেড় এলাকার মিরাজ হোসেন বলেন, ‘দুপুরে হঠাৎ করে দেখি জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে মানুষের ভিড়। সামনে এগিয়ে দেখি ৪৫ টাকা কেজি দরে মিশরীয় পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে। লাইনে দাঁড়িয়ে এক কেজি পেঁয়াজ কিনলাম। টিসিবির এই উদ্যোগ নিম্ন আয়ের মানুষের জন্য ভালো, অল্প দামে এখানে আমরা পেঁয়াজ কিনতে পেরে খুশি। কিন্তু টিবিসির এই পেঁয়াজ বিক্রির আগে প্রচার প্রচারণা দরকার ছিল।’
টিসিবি’র খুলনা বিভাগীয় কার্যালয়ের ঊর্দ্ধতন কার্য নির্বাহী রবিউল মোর্শেদ বলেন, ‘স্থানীয় বাজারে চলমান পেঁয়াজের দাম ও সংকট দূর করতে বাগেরহাটে খোলা বাজারে পেঁয়াজ বিক্রির উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এজন্য বাগেরহাট জেলায় তুরস্ক থেকে আমদানি করা তিন টন পেঁয়াজ বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। যেহেতু জেলা শহরে টিসিবির কোনও কার্যালয় নেই, তাই স্থানীয় প্রশাসনই ঠিক করবে এই পেঁয়াজ কোথায় কতটুকু বিক্রি হবে।’
প্রচার প্রচারণার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘প্রচার প্রচারণার দায়িত্ব স্থানীয় প্রশাসনের। ৪৫ টাকা কেজি দরে একজন এক কেজির বেশি কিনতে পারবেন না। প্রতিদিন এক হাজার মানুষকে পেঁয়াজ দেওয়া হচ্ছে। কয়েকদিন এভাবে বাগেরহাটের খোলা বাজারে পেঁয়াজ বিক্রি হলেই স্থানীয় বাজারে চাহিদা কমে যাবে। বর্তমানে বাজারে যে উচ্চমূল্য, তা পড়তে বাধ্য হবে।’

LEAVE A REPLY