মাহমুদউল্লাহকে নিয়ে ঝুঁকি নিতে চাইছে না বিসিবি

0
79

ক্রীড়া ডেস্ক : মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ বিপিএলে ফিরবেন কবে? এমন প্রশ্নে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স কোচ পল নিক্সন আশাবাদ ব্যক্ত করে বললেন, ‘৬-৭জানুয়ারি হয়তো’।
কিন্তু বাংলাদেশ ক্রিকেটের মেডিক্যাল বিভাগ বলছে অন্য কথা। চট্টগ্রাম তাঁকে চাইলেও এই মুহুর্তে বিসিবি মেডিক্যাল বিভাগের পক্ষে মাহমুদউল্লাহকে ম্যাচ খেলার অনুমতি দেওয়া সম্ভব না। কেননা আসন্ন পাকিস্তান সিরিজে টি-টোয়েন্টি দলপতিকে পুরোপুরি ফিট পেতে চাইছে লাল সবুজের ক্রিকেটের সর্বোচ্চ প্রশাসন।
কলকাতা টেস্টে পাওয়া হ্যামস্ট্রিংয়ের চোটে বঙ্গবন্ধু বিপিএলের প্রথম দুটি ম্যাচে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের জার্সি গায়ে নামা হয়নি মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের। ১৪ ডিসেম্বর রংপুর রেঞ্জার্সের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে মাঠে নামার আগে দিতে হয়েছে ফিটনেস টেস্ট। সেই টেস্টে পাশ করা সাপেক্ষে তাকে খেলার অনুমতি দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেটের মেডিকেল বিভাগ। দুটি ম্যাচ ভালই কাটিয়েছেন। কিন্তু তৃতীয় ম্যাচে এসে সেই হ্যামস্ট্রিংয়ে চোট অনুভব করলে ছিটকে যান চট্টলা দলপতি।
তবে তার ক্ষতে স্ক্যান করে কিছুই পায়নি বিসিবি মেডিকেল বিভাগ। কিন্তু তা সত্বেও খেলার অনুমতি দেয়নি বাংলাদেশ ক্রিকেটের সর্বোচ্চ এই প্রশাসন। চট্টগ্রাম পর্বের ১৮ ডিসেম্বরের ম্যাচের পর ছিলেন বিশ্রামে। আগামিকাল থেকে শুরু করবেন জগিং। এরপর আস্তে আস্তে শুরু হবে ব্যাটিং ও বোলিং। অর্থাৎ ঢাকার চলতি পর্ব তো বটেই, বিপিএল সিলেট পর্বেও চট্টগ্রাম তাকে পাবে কী না তা নিয়ে যথেষ্টই সন্দেহ আছে।
কেননা বিসিবি চাইছে না, এখনই সে মাঠে নেমে পড়ুক। আসন্ন পাকিস্তান সিরিজে টি-টোয়েন্টি অধিনায়ককে পুরোপুরি ফিট পেতে এই মুহুর্তে কোন ঝুঁকিই নিতে চাইছে না বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। আর ঠিক সে কারণেই স্ক্যান রিপোর্টে কিছুই ধরা না পড়লেও তাকে শীঘ্রই মাঠে নামতে দেওয়ার পক্ষপাতি নন তারা।
রোববার (২৯ ডিসেম্বর) সারাবাংলাকে এ তথ্য দিলেন বিসিবির প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী।
তিনি বলেন, ‘চট্টগ্রামের ওই ম্যাচ শেষে আমরা ওর স্ক্যান করিয়েছি। কিন্তু কিছুই পাইনি। ও সিলেট পর্ব খেলতে পারবে কী না সেটা বলা যাচ্ছে না। কেননা সামনে যেহেতু পাকিস্তান সিরিজ আমরা ওটাই গুরুত্ব দিচ্ছি। যতক্ষণ পর্যন্ত ও পুরোপুরি সুস্থ হয়ে না উঠছে আমরা অনুমতি দিতে পারি না। চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের ওকে পাওয়ার তাড়া থাকবে এটা স্বাভাবিক। তবে তাদের তাড়া থাকলেই তো আর হবে না। আমরা প্রাধান্য দিচ্ছি পাকিস্তান সিরিজকে। আগামিকাল থেকে ও জগিং শুরু করবে। এরপর আস্তে আস্তে ব্যাটিং-বোলিং শুরু করবে। অতএব বুঝতেই পারছেন বিষয়টি সময় সাপেক্ষ। তবে ও যদি ব্যক্তিগতভাবে অনুভব করে যে খেলবে সেটা ওর সিদ্ধান্ত।’
এদিকে দুপুরে মিরপুর জাতীয় ক্রিকেট একাডেমি মাঠে দলের অনুশীলন শেষে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স কোচ পল নিক্সন আশাবাদ ব্যক্ত করে বললেন, হয়ত সপ্তাহ বাদেই আবার প্রিয় শিষ্যকে তিনি দলে পাবেন।
‘আমার মনে হয় সে পরবর্তী ম্যাচ খেলবে না হ্যামস্ট্রিং ইনজুরি আছে যেটা তার আগেই ছিলো তার সে শতভাগ ফিট নয়।আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার হিসেবে বলেন আর ক্রিকেটার হিসেবে বলেন আপনি পৃথিবীর সেখানেই খেলেন না কেন ক্রিকেটারদের সবসময় ইনজুরির সঙ্গে যুদ্ধ করতে হয়, এটা নিয়েই খেলতে হয়, খেলারই অংশ এটা। ঠান্ডার মধ্যে শরীরের ওপর চাপ গেছে, পাঁচ দিনের মধ্যে চারটা ম্যাচ খেলেছে সে এটা মনে রাখতে হবে। বোর্ডে সিদ্ধান্তকে সম্মান জানাতে হবে। আর এক সপ্তাহের মতো সময় লাগবে রিয়াদের মাঠে ফিরতে।’
বঙ্গবন্ন্ধু বিপিএলে ৮ ম্যাচে ৬ জয়ে ১২ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। ব্যাটে বলে চলতি বিপিএলে খেলা ৩ ম্যাচে মাহমুদউল্লাহর রান যথাক্রমে অপরাজিত ১৫, ০২ ও ৫৯। আর বল হাতে উইকেট সংখ্যা ১টি।

LEAVE A REPLY