শ্যামনগরে কলেজছাত্রী হত্যায় এনজিওকর্মীসহ আটক ৩

67

শ্যামনগর (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি : শ্যামনগরের বাদঘাটা গ্রামের কলেজছাত্রী মরিয়ম খাতুন (২০) হত্যায় এক এনজিওকর্মীসহ সন্দেহভাজন তিনজনকে আটক করেছে শ্যামনগর থানা পুলিশ।

শনিবার ভোররাতে উপজেলা সদরের কাঁচড়াহাটি গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে তাদেরকে আটক করা হয়।
আটক ব্যক্তিরা নিহত মরিয়ম খাতুনদের পাশের কাঁচড়াহাটি গ্রামের ওয়ার্ল্ডভিশন নামে এনজিওর কর্মী সুব্রত মন্ডল (২২) এবং তার বাবা পরিমল মন্ডল ও মা অষ্টমী মন্ডল।

এর আগে শুক্রবার দুপুরে উপজেলার সোয়ালিয়া দেবীপুর গ্রামের আব্দুর রশিদের ছেলে শাহিনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ আটক করলেও খুনের সঙ্গে সম্পৃক্ততা না পেয়ে শনিবার সকালে তাকে ছেড়ে দেয়।
এদিকে, নিহত মরিয়ম খাতুনের মোবাইল ফোনের খোঁজে শনিবার বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে নকিপুর বাজার-সংলগ্ন যমুনা নদীতে তল্লাশি চালায় পুলিশ।

এর আগে নিহতের বাবা শুক্রবার মেয়ের মৃতদেহ উদ্ধারের পরপরই প্রতিবেশীদের কেউ তার মেয়েকে হত্যা করতে পারে বলে শংকা প্রকাশ করেছিলেন।

স্থানীয় একটি সূত্র জানিয়েছে, সুব্রত মন্ডলের সঙ্গে মরিয়মের গভীর সম্পর্ক ছিল।
শ্যামনগর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আলহাজ নাজমুল হুদা বলেন, হত্যাকান্ডের রহস্য উদ্ঘাটনে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। রোববার নাগাদ সবকিছু স্পষ্ট করে বলা যাবে।

তবে কাউকে আটক বা গ্রেফতারের বিষয়ে তিনি কোনো তথ্য দেননি।

শুক্রবার সকালে শ্যামনগর উপজেলা সদরের বল্লভপুর গ্রামের ধানক্ষেতের খড়ের গাদার ওপর গলায় ওড়না দিয়ে গিঁট দেওয়া অবস্থায় মরিয়ম নামে এক কলেজছাত্রীর মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

LEAVE A REPLY