ফাইনালে মুশফিক-রুশোর সঙ্গে লড়াইয়ে মালিক

31

ক্রীড়া ডেস্ক : ফাইনালের দুই দলের তিন ক্রিকেটার আছেন রান সংগ্রাহকদের তালিকার শীর্ষে থেকে বঙ্গবন্ধু বিপিএল শেষ করার লড়াইয়ে। এই মুহূর্তে চূড়ায় থাকা মুশফিকুর রহিমের সবচেয়ে কাছে আছেন খুলনা টাইগার্সেরই আরেক ব্যাটসম্যান রাইলি রুশো। তাদের চ্যালেঞ্জ জানাতে পারেন রাজশাহী রয়্যালসের অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান শোয়েব মালিক।
মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আজ শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে মুখোমুখি হবে খুলনা ও রাজশাহী। ফাইনালের লড়াইয়ের মাঝে আছে ব্যক্তিগত লড়াইও। যেখানে মুশফিক-রুশোদের প্রতিপক্ষে মালিক-লিটন দাস। ফল নির্ধারণে যা রাখতে পারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা।
গতবার প্লেয়ার্স ড্রাফটে অবিক্রীত থেকে যাওয়া মুশফিক এবার দল পান সবার আগে। প্রথম ডাকের সুযোগ পেয়ে তাকে দলে টানে খুলনা। আস্থার প্রতিদান দিয়ে চলেছেন মুশফিক। উইকেটের সামনে-পেছনে দারুণ পারফরম্যান্সে দলকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন সামনে থেকে। চূড়ায় থেকে প্রাথমিক পর্ব শেষ করা দলটি ফাইনালে যায় সবার আগে।
১৩ ইনিংসে ১৪৭.৩৩ স্ট্রাইক রেট ও ৭৮.৩৩ গড়ে ৪৭০ রান এসেছে খুলনা অধিনায়ক মুশফিকের ব্যাট থেকে। ৪৪০ রান করে চূড়ায় থেকে ২০১৩ আসর শেষ করা এই কিপার-ব্যাটসম্যান এবার দুইবার ভেঙেছেন নিজের ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ। চট্টগ্রামে রাজশাহীর বিপক্ষে বড় রান তাড়ায় দলকে পথ দেখান ৯৬ রানের দারুণ ইনিংসে। পরে ঢাকায় কুমিল্লা ওয়ারিয়র্সের বিপক্ষে খেলেন অপরাজিত ৯৮ রানের আরেকটি অসাধারণ ইনিংস।
প্লেয়ার্স ড্রাফটে খুলনার প্রথম বিদেশি খেলোয়াড় ছিলেন রুশো। তিনিও দারুণভাবে মেটাচ্ছেন দলের দাবি। ফিল্ডিংয়ে দুর্দান্ত, ব্যাটিংয়ে যথারীতি আগ্রাসী। গত আসর যেখানে শেষ করেছিলেন, এবার শুরু করেছেন সেখান থেকেই। উদ্বোধনী জুটি দ্রুত ভাঙলে ক্রিজে গিয়ে গড়ছেন প্রতিরোধ। মঞ্চ প্রস্তুত পেলে পূরণ করছেন পরিস্থিতির দাবি। কখনও শান্ত, কখনও উত্তাল রুশোর ব্যাট।
বিপিএলে এক আসরে একমাত্র ব্যাটসম্যান হিসেবে পাঁচশ ছাড়ানো রান করা রুশো এবার ৪৫.৮০ গড় ও ১৫৬.৩১ স্ট্রাইক রেটে করেছেন ৪৫৮ রান। গত আসরে ৫৫৮ রান করা বিস্ফোরক এই ব্যাটসম্যানের সামনে টানা দুই আসরে পাঁচশ রান করার হাতছানি। মুশফিকের মতো দক্ষিণ আফ্রিকার বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যানও এবারের আসরে করেছেন চার ফিফটি।
দলের প্রয়োজনে কখনও টপ অর্ডার, কখনও মিডল অর্ডার ব্যাট করছেন মালিক। রাজশাহীর ফাইনালে ওঠায় বড় অবদান আছে পাকিস্তানের অভিজ্ঞ এই ব্যাটসম্যানের। ১৪ ইনিংসে ৪০.৫৪ গড় ও ১৩২.৩৪ স্ট্রাইক রেটে করেছেন ৪৪৬ রান। তিন ফিফটির সবচেয়ে বড়টিতে করেছেন ৮৭ রান।
এখন পর্যন্ত সেরা পাঁচে থাকা দুই ব্যাটসম্যান দাভিদ মালানের (৪৪৪) দল কুমিল্লা ও ইমরুল কায়েসের (৪৪২) দল চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স এরই মধ্যে বিদায় নিয়েছে টুর্নামেন্ট থেকে।
১৪ ইনিংসে ১৩৮.২৬ স্ট্রাইক রেট ও ৩৩.০৭ গড়ে ৪৩০ রান করে তাদের পেছনেই আছেন লিটন দাস। এই কিপার-ব্যাটসম্যান করেছেন তিন ফিফটি, সর্বোচ্চ ৭৫। মুশফিক-রুশো-মালিকদের বাজে দিনে বড় একটি ইনিংস খেলে টেবিল ওলট-পালট করে দিতে পারেন এই ওপেনারও। রাজশাহীর উদ্বোধনী জুটিতে তার সঙ্গী আফিফ হোসেনের ব্যাট থেকে এসেছে ৩৬০ রান।
সবার আগে বিপিএলে দুই হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করা তামিম ইকবালকে এরই মধ্যে ছাড়িয়ে গেছেন মুশফিক। দুই হাজার ২৫৩ রান করে আছেন বিপিএলের সব আসর মিলিয়ে সর্বোচ্চ সংগ্রাহকদের তালিকার শীর্ষে। দুই হাজার ২২১ রান নিয়ে দুই নম্বরে থাকা বাঁহাতি ওপেনারের সঙ্গে ব্যবধান বাড়িয়ে নেওয়ার সুযোগ তার সামনে।

LEAVE A REPLY