যশোরে শরিয়ত বয়াতির মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশের বাঁধা

2430
মিছিলে পুলিশের বাঁধা

কল্যাণ রিপোর্ট : বাউল শিল্পী শরিয়ত বয়াতির নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে যশোরে মানববন্ধন করেছে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের নেতাকর্মীরা। মানববন্ধন শেষে বিক্ষোভ মিছিল বের করলে পুলিশ বাঁধা দেয়।

আজ বৃহস্পতিবার (১৬ জানুয়ারি) বিকালে শহরের চিত্রামোড়ে এই মানববন্ধন করেন সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের নেতাকর্মীরা । বিভিন্ন সামাজিক ও রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীরাও মানববন্ধনে অংশ নেন। মানববন্ধন শেষে চিত্রা মোড় থেকে দড়াটানার দিকে একটি মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি মুজিব সড়কে ঢুকলে পুলিশ বাঁধা দেয়। এ সময় মিছিলের অগ্রভাগে থাকা সাংস্কৃতিক সংগঠন গুলোর নেতাদের সাথে পুলিশের বাকবিতন্ডা হয়। পরে পুলিশের বাঁধা উপেক্ষা করে মিছিলটি মুজিব সড়ক দিয়ে এগিয়ে যায়।

মিছিলে পুলিশের বাঁধা

এদিকে মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি তরিকুল ইসলাম তরু, সাবেক সভাপতি সুকুমার দাস, তীর্যক যশোরের সাধারণ সম্পাদক দীপংকর দাস রতন, বাংলাদেশের ওয়ার্কাস পার্টির (মার্কসবাদী) জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান ভিটু, বাসদ (মার্কসবাদী) যশোর জেলার সমন্বয়ক হাসিনুর রহমান, যশোর জেলা শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মাহমুদ হাসান বুলু, অর্চনা বিশ্বাস, যশোর ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সাধারণ সম্পাদক সাজেদ রহমান বকুল, দৈনিক প্রতিদিনের কথার বার্তা সম্পাদক এইচ আর তুহিন, পরিতোষ বয়াতি, নুর জাহান আরা নীতি প্রমুখ।

চিত্রা মোড়ে মানববন্ধন

মানববন্ধনটি পরিচালনা করেন যশোর সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক সানোয়ার আলম খান দুলু।

এসময় বক্তারা বলেন, আউল বাউল লালনের দেশ বাংলাদেশ। তাদের হয়রানি করে, তাদের জেলে রেখে বাংলাদেশে এখন কোন দিকে যাচ্ছে তা আমাদের ভাবতে হবে। আমাদের দেশে সংস্কৃতিকে ধর্মের মুখোমুখি দাঁড় করানোর ষড়যন্ত্র চলছে। একাত্তরের পূর্বে সাম্প্রদায়িক রাষ্ট্র গঠনের মানষে এমন তৎপরতা চলেছিল। কিন্তু এদেশের বিবেকবান মানুষ তা হতে দেননি। সেদিন তাদের ষড়যন্ত্র বাস্তবায়ন হয়নি আজও হবে না। এজন্য সমগ্র বিবেকবান মানুষ এবং সংস্কৃতি কর্মীদের প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here