স্বপ্ন নিয়ে বেড়ে ওঠা কল্যাণ

0
166

শ্রাবণী সুর
বড় স্বপ্ন নিয়ে বেড়ে ওঠে একটি পত্রিকা। সংবাদ সম্পাদকীয় সাহিত্যের পসরা সাজিয়ে চলা শুরু করে। বীর মুক্তিযোদ্ধা একরাম-উদ-দৌলা সম্পাদিত দৈনিক কল্যাণ পত্রিকাটি তিন দশক ধরে নিরবচ্ছিন্নভাবে সত্য সংবাদ পরিবেশন করার পাশাপাশি শিল্প ও সাহিত্য নিয়ে কাজ করছে। পথচলার ৩৫ বছর পূর্ণ করল পত্রিকাটি। আর ৩৬ বছর পূর্তি উপলক্ষে দিনব্যাপী অনুষ্ঠান হয়েছিল শীতল সন্ধ্যায় নিজ আঙ্গিনায় তিন দশক পূর্তি স্মরণীয় করে রাখতে আয়োজন করা হয় সৃজন-সক্রিয়তার সানন্দ জ্ঞাপন উৎসব। এক দিনের উৎসবে অন্তর্ভুক্ত হয়েছে বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা সভা, গান ও আড্ডার পাশাপাশি খাওয়া-দাওয়া। একেবারে বাঙ্গালী খাবার। মুড়কি বাতাসা মোয়া জিলাপি কদমা।
আমি সব সময় দৈনিক কল্যাণের সমৃদ্ধি কামনা করি। পত্রিকাটি জনগণের পক্ষে অত্যন্ত বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করছে। অর্থনীতিসহ বিভিন্ন ইস্যুতে কল্যাণ অত্যন্ত প্রয়োজনীয় কথা বলে এবং দৃঢ়তার সঙ্গে বলে। জনগণ যে ভাষা পছন্দ করে কল্যাণ ঠিক সেই ভাষাতেই কথা বলে- পত্রিকাটির অনেক প্রতিবেদন ও উপ-সম্পাদকীয়তে এটি আমরা দেখেছি উপ-সম্পাদকীয় বৈচিত্র্যপূর্ণ। পত্রিকাটিতে স্বাধীনভাবে লেখা যায়, যা উৎসাহব্যঞ্জক। একটি সংবাদপত্রকে তার সাহসী ভূমিকা দিয়েই মানুষের কাছে গ্রহণযোগ্যতা অর্জন করতে হয়।
সেই কাজে পত্রিকাটি জনগণের স্বার্থে ভূমিকা পালন করে আসছেন। নামের সার্থকতার প্রমাণ দিয়ে পত্রিকাটি এভাবেই ইতিহাস নির্মাণের বাহক হয়ে উঠুক।
কাগজটিকে ধারাবাহিকভাবে উন্নততর করার জন্য এর ব্যবস্থাপনা ও সম্পাদকীয় পরিষদ আন্তরিক প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছে। আমি তাদের এ প্রয়াসের প্রশংসা করছি। পত্রিকাটিকে একটি ব্যবসায়িক গোষ্ঠীর বৃত্ত থেকে বের করে নিয়ে যে প্রফেশনাল চরিত্র দেয়া হচ্ছে তা অত্যন্ত আশাপ্রদ। একটি নিরপেক্ষ পত্রিকা হিসেবে কল্যাণ তার প্রচেষ্টা চালিয়ে যাবে, এটাই আমি আশা করি।
প্রধান শিক্ষক
ও সভাপতি
জাতীয় রবীন্দ্রসঙ্গীত সম্মিলন পরিষদ যশোর।

LEAVE A REPLY