যশোরে করোনা আক্রান্তদের মধ্যে সাংবাদিকও

144

কল্যাণ রিপোর্ট : যশোরে নতুন কওে যে ১১ ব্যক্তি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত বলে শনাক্ত হয়েছেন, তাদের মধ্যে একজন সাংবাদিকও রয়েছে। এর আগে এই জেলায় ডাক্তারসহ স্বাস্থ্যকর্মীরা আক্রান্ত বলে শনাক্ত হলেও এই প্রথম একজন সংবাদকর্মী করোনা পজেটিভ বলে চিহ্নিত হলেন।
আজ বুধবার যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) জেনোম সেন্টার থেকে যশোরের ৬৫ জনের নমুনা পরীক্ষার ফলাফল ঘোষণা করা হয়। পজেটিভ হিসেবে শনাক্তদের মধ্যে যশোর সদরে চার, মণিরামপুরে চার, কেশবপুরে দুই এবং চৌগাছায় একজন রয়েছেন।
যশোরের সিভিল সার্জন ডা. শেখ আবু শাহীন গতকাল দুপুরে এই তথ্য নিশ্চিত করে জানান, আক্রান্তদের মধ্যে একজন চিকিৎসক ও একজন সাংবাদিক রয়েছেন।
আক্রান্ত সাংবাদিক যশোরের লোকসমাজ পত্রিকার গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে রয়েছেন। সম্প্রতি তিনি অসুস্থ হয়ে দুই দফা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হন। মাত্র দুইদিন আগে তিনি হাসপাতাল ছেড়ে শহরের বাসায় ফিরেছেন বলে নিশ্চিত করেছেন পত্রিকাটির সিনিয়র সাংবাদিক শেখ আব্দুল্লাহ হুসাইন।
হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. আরিফ আহমেদ জানিয়েছেন, ওই সাংবাদিকের নমুনা সংগ্রহ করে যবিপ্রবি জেনোম সেন্টারে পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু রিপোর্ট আসার আগেই তিনি জোরপূর্বক আইসোলেশন ওয়ার্ড থেকে বাড়িতে চলে যান। এরফলে তার পরিবারসহ আরো অনেকে ঝুঁকির মধ্যে পড়েছেন।
লোকসমাজের বার্তা সম্পাদক শিকদার খালিদ বলছেন, এক সহকর্মীর শরীরে করোনাভাইরাসের অস্তিত্ব মিলেছে বলে তিনি শুনেছেন। এখনো বিস্তারিত জানতে পারেননি।
করোনা রোগী বলে শনাক্ত সংবাদকর্মী প্রেসক্লাব যশোরের সদস্য। খবর শোনার সঙ্গে সঙ্গে প্রেসক্লাব সম্পাদক আহসান কবীর ক্লাবে সংবাদকর্মীদের যাতায়াত কমানোর উদ্যোগ নিয়েছেন। তিনি খুব জরুরি কাজ না থাকলে সংবাদকর্মীদের প্রেসক্লাবে যেতে বারণ করেছেন।
ক্লাবের সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন ও সম্পাদক আহসান কবীর এক বিবৃতিতে করোনা আক্রান্ত সদস্যের রোগমুক্তি কামনা করেছেন। নেতৃদ্বয় বলেছেন, এই দুঃসময়ে প্রেসক্লাব আক্রান্ত সদস্যের পাশে থাকবে।
যশোরের সিভিল সার্জন জানান, আজ পর্যন্ত মোট ৬৮৩ জনের নমুনা পরীক্ষার জন্যে ল্যাবে পাঠানো হয়। এর মধ্যে ফলাফল এসেছে ৪৯৬টির। এই জেলায় এখন করোনা আক্রান্ত হিসেবে শনাক্তের সংখ্যা ৫৫। যার মধ্যে যশোরে দায়িত্বপ্রাপ্ত বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার সার্ভিলেন্স মেডিকেল অফিসারসহ পাঁচ চিকিৎসক রয়েছেন। এছাড়া রয়েছেন তিনজন নার্সসহ ১৩ জন স্বাস্থ্যকর্মী। আর গতকাল যুক্ত হলেন একজন সংবাদকর্মী।
বেলা দুইটার দিকে জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা ডাক্তার, সাংবাদিকসহ আক্রান্তদের বাড়ি লকডাউন করেন বলে নিশ্চিত করেছেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শফিউল আরিফ।

Previous articleএকদিনে সর্বোচ্চ রোগী শনাক্ত দেশে
Next articleযশোরে আরো ১১ করোনা রোগী শনাক্ত

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here