ওয়েব সিরিজ : গ্রামীণফোন ও রবির ব্যাখ্যা তলব

0
26

বিনোদন ডেস্ক : নিজেদের প্ল্যাটফর্ম ও নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে প্রচারিত ওয়েব সিরিজ নিয়ে প্রশ্ন তুলে মোবাইল ফোন অপারেটর গ্রামীণফোন ও রবির কাছে ব্যাখ্যা চেয়েছে তথ্য মন্ত্রণালয়।
তথ্য অধিদপ্তর থেকে বুধবার কোম্পানি দুটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে ব্যাখ্যা চেয়ে চিঠি পাঠানো হয় বলে বৃহস্পতিবার এক সরকারি তথ্যবিবরণীতে জানানো হয়েছে।
আগামী সাত দিনের মধ্যে গ্রামীণফোন ও রবিকে ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়েছে।
চিঠিতে বলা হয়েছে, “আপনার প্ল্যাটফর্ম এবং নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে সম্প্রতি ওয়েব সিরিজের নামে সেন্সরবিহীন নগ্ন, অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ দৃশ্য, কাহিনী ও সংলাপ সংবলিত ভিডিও কন্টেন্ট ওয়েবে আপলোড করে প্রচার করা হয়েছে বলে জানা গেছে, বিষয়টি সরকারের দৃষ্টিগোচর হয়েছে।
“বিষয়টি সম্পর্কে দেশের গণমাধ্যম অত্যন্ত নেতিবাচকভাবে প্রচার করেছে এবং সমাজে এর ব্যাপক বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। এ ধরনের ভিডিও কন্টেন্ট আপনার প্ল্যাটফর্ম এবং নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে ওয়েবে আপলোড এবং প্রচার করার জন্য আপনার প্রতিষ্ঠান সরকারের কোনো রেজিস্ট্রেশন বা লাইসেন্সপ্রাপ্ত কিনা এবং থাকলে তা কি, তা সরকারের জানা প্রয়োজন।”
বিশ্বের নানা দেশের মতো বাংলাদেশেও জনপ্রিয় হয়ে উঠছে ওয়েব সিরিজ। তবে তা রাষ্ট্রীয় প্রচলিত তদারকি ব্যবস্থার আওতায় নেই বলে কী নিয়মে তা প্রচারিত হবে, তা নিয়ে বাংলাদেশেও উঠেছে প্রশ্ন।
সম্প্রতি কয়েকটি ওয়েব সিরিজের কন্টেন্ট নিয়ে সমালোচনা উঠলে তা নিয়ে শিল্পী-কলাকুশলীদেরও দ্বিধাবিভিক্তি দেখা দেয়। এক পক্ষ ওয়েব সিরিজের পক্ষে বিবৃতি দেন, অন্য পক্ষেও বিবৃতি আসে তা বন্ধের জন্য।
তথ্য অধিদপ্তরের চিঠিতে বলা হয়েছে, ওয়েব সিরিজের নামে ‘সেন্সরবিহীন অশালীন ভিডিও কন্টেন্ট’ আপলোড ও প্রচার করা দেশের প্রচলিত আইনের সুস্পষ্ট লংঘন ও সামাজিক মূল্যবোধের পরিপন্থি’।
“এ ধরনের সেন্সরবিহীন, নগ্ন ও অশালীন দৃশ্য, কাহিনী ও সংলাপ সংবলিত ভিডিও কন্টেন্ট প্রচার দেশের প্রচলিত আইন যেমন বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ (সংশোধন) আইন, ২০১০ এর ৬৯ ধারা, পর্ণোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইন, ২০১২ এর ৪ ও ৮ ধারা, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন, ২০১৮, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইন, ২০০৬ এর পেনাল কোড, ১৮৬০ এর সম্পূর্ণ পরিপন্থি।”
“আপনার (জিপি-রবি) প্রতিষ্ঠানের মতো বৃহৎ একটি প্রতিষ্ঠানের নিকট এ ধরনের কার্যকলাপ মোটেই কাম্য নয় “বলা হয় চিঠিতে।
তথ্য প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসান ওয়েব সিরিজ নিয়ে আলোচনার প্রেক্ষাপটে সম্প্রতি বলেছিলেন, সরকার ওয়েব সিরিজের বিপক্ষে নয়। তবে পশ্চিমা বিশ্বকে অনুকরণ করে দেশের ওয়েব সিরিজে ‘ন্যুডিটি’, ‘ভালগারিজম’ তুলে আনা সমীচীন নয়।
অন্যদিকে তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেছিলেন, গ্রামীণফোন ও রবির ওয়েব সিরিজ আপলোড করার আইনি ভিত্তি আছে কি না, তা যাচাই করবেন তারা।
“যদি আইনগত অনুমোদন না থাকে তাহলে সেগুলো বন্ধ করে দেওয়া হবে। আর যদি আইনগত অনুমোদন থাকেও, ভিডিও পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইন অনুযায়ী কনটেন্টগুলোর আইনভঙ্গ শাস্তিযোগ্য অপরাধ। সুতরাং সরকার এক্ষেত্রে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করবে,” বলেছিলেন তিনি।

LEAVE A REPLY