যশোর জেনারেল হাসপাতালে শিগগিরই চালু হবে আইসিইউ

0
31

কল্যাণ রিপোর্ট : শিগগির আইসিইউ ভেন্টিলেটর সুবিধা চালু হচ্ছে যশোর জেনারেল হাসপাতালে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে ইতিমধ্যে ছয়টি আইসিইউ ভেন্টিলেটর বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে প্রতিষ্ঠানটিকে। রোববার এগুলো যা যশোরে এসে পৌঁছানোর সম্ভাবনা রয়েছে।
কিন্তু মেশিনারিজ পরিচালনার জন্য পর্যাপ্ত জনবল নেই প্রতিষ্ঠানটির। অবশ্য সিভিল সার্জন বলছেন, স্থানীয়ভাবে ডাক্তার ও নার্সদের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে প্রাথমিকভাবে আইসিইউ চালু করা হবে এবং পূর্ণাঙ্গভাবে চালু করতে জনবল চাওয়া হবে।
যশোরে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় গত ১২ এপ্রিল। এরপর বাড়তে থাকে রোগীর সংখ্যা। শনিবার যশোরে করোনা রোগী পাঁচশ’ ছাড়িয়ে গেছে।
শুরু থেকে করোনা উপসর্গ নিয়ে ভর্তি হওয়া রোগীদের যশোর জেনারেল হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছিল। এসময় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ অনেক রোগী পেয়েছেন, যাদের আইসিইউ সাপোর্টের প্রয়োজন ছিল। কিন্তু সে সুবিধা না থাকায় রোগীদের খুলনা ও ঢাকায় রেফার করা হতো।
এমন অবস্থায় জেলা করোনাভাইরাস প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ কমিটির সভায় রোগীদের চিকিৎসা সুবিধার্থে আইসিইউ ভেন্টিলেটর আনার ব্যাপারে সরকারের সংশ্লিষ্ট দপ্তরে যোগাযোগ করার বিষয়ে আলোচনা হয়। এর পর স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও মন্ত্রণালয়ে চিঠি দেয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। সেই চিঠির প্রেক্ষিতে মন্ত্রণালয় যশোর জেনারেল হাসপাতালের অনুকূলে ছয়টি আইসিইউ ভেন্টিলেটর বরাদ্দ দিয়েছে; যা রোববার যশোরে এসে পৌঁছানোর সম্ভাবনা রয়েছে। ইতিমধ্যে ভেন্টিলেটরগুলো স্থাপনের জন্য প্রয়োজনীয় কাজ শুরু করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। কিন্তু আইসিইউ পরিচালনার জন্য রয়েছে জনবল সংকট।
হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. আরিফ আহমেদ বলেন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও স্বাস্থ্য বিভাগে যশোরের জন্য দশটি আইসিইউ ভেন্টিলেটরের চাহিদাপত্র দেওয়া হয়েছিল। তার প্রেক্ষিতে ঢাকার নাক কান গলা ইনস্টিটিউটের মেরামতকৃত ছয়টি আইসিইউ ভেন্টিলেটর বরাদ্দ পাওয়া গেছে। যা রোববার হাতে পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। আইসিইউ ইউনিট স্থাপনের জন্য ইতিমধ্যে হাসপাতালের ছয় নম্বর মহিলা সার্জারি ওয়ার্ডটি খালি করে মেরামতের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। দ্রুতই এটি চালু করা হবে এবং এ সংক্রান্ত প্রশিক্ষিত জনবল চেয়ে আবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে চিঠি দেওয়া হবে।
যশোরের সিভিল সার্জন ডা. শেখ আবু শাহীন বলেন, আইসিইউ না থাকায় প্রায়ই যশোর থেকে গুরুতর রোগীদের খুলনা ও ঢাকায় রেফার করা হচ্ছিল। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে যে বরাদ্দ এসেছে তাতে এ অঞ্চলের মানুষের চিকিৎসায় নতুন দ্বার উন্মোচিত হবে।
তিনি আইসিইউ চালু করতে প্রশিক্ষিত জনবলের অভাব থাকার কথা স্বীকার করেন। বলেন, স্থানীয়ভাবে ডাক্তার ও নার্সদের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে প্রাথমিকভাবে আইসিইউ চালু করা হবে। পরে পূর্ণাঙ্গভাবে চালু করতে জনবল চাওয়া হবে।

LEAVE A REPLY