স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলের লুৎফর রহমান আর নেই

0
8

ক্রীড়া ডেস্ক : বাংলাদেশের স্বাধীনতার ইতিহাস জড়িয়ে আছে তাঁর নামের সঙ্গে। অনেক বছর ধরেই ফুটবল অঙ্গনে তিনি অনুপস্থিত ছিলেন। মিডিয়াতেও খোঁজ ছিল না। অবশেষে খবরে এলেন লুৎফর রহমান, তবে দুঃসংবাদ হয়ে। স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলের গর্বিত এই খেলোয়াড় ও সংগঠক সোমবার সকাল ৮ : ৪৫ মিনিটে না ফেরার দেশে পাড়ি জমিয়েছেন (ইন্নালিল্লাহে ওয়া ইন্না ইলাহি রাজেউন)।
লুৎফর রহমানের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, তিনি দীর্ঘদিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন। চলাফেরা করার শক্তি ছিল না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁকে ৩০ লাখ টাকা দিয়ে সহায়তা করেছিলেন। বাড়িতেই চিকিৎসা চলছিল। কিন্তু তাকে সুস্থ করার চেষ্টা আর সফল হলো না। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭০ বছর। লুৎফর রহমানের মৃত্যুতে দেশ একজন কৃতি সন্তান হারাল।
স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলের সদস্য ছাড়াও মুজিব নগরে গঠিত বাংলাদেশ ক্রীড়া সমিতির সাধারণ সম্পাদকও ছিলেন লুৎফর রহমান। ১৯৬৫ থেকে ১৯৭৫ পর্যন্ত যশোর জেলা ফুটবল দলের হয়ে খেলেছেন নিয়মিত। ১৯৬৮ সালে পূর্ব পাকিস্তান বোর্ড দলে যোগ দিয়ে শুরু করেন পেশাদার ক্যারিয়ার। ১৯৬৯ সালে যোগ দেন ঢাকা ওয়ারী ক্লাবে। ১৯৭০ সালে হাতে পড়েন ওয়ারীর অধিনায়কত্বের আর্মব্যান্ড।


১৯৭১ সালে সারা দেশে যখন বেজে ওঠে যুদ্ধের দামামা তখন, ফুটবল পায়ে পাক হানাদারদের বিরুদ্ধে শুরু হয় ভিন্ন এক প্রতিরোধ। গঠিত হয় স্বাধীন বাংলা ফুটবল দল। যে দলের গৌরবময় সদস্য ছিলেন লুৎফর রহমান। স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলের হয়ে অংশ নেন ১৬টি ম্যাচে।
দেশ স্বাধীনের পরে ১৯৭৩ সালে তিনি বাংলাদেশ জাতীয় দলের হয়ে রাশিয়ার মিনস্ক ডায়নামো ফুটবল দলের বিরুদ্ধে ম্যাচে অংশ গ্রহণ করেন।
২০১৮ সালের ডিসেম্বরের শেষ দিকে ব্রেনস্ট্রোক করেন লুৎফর রহমান। এর পর থেকে পক্ষাঘাত রোগে আক্রান্ত হয়ে শয্যাশায়ী ছিলেন এই কৃতি ফুটবলার। গত বছর জুলাই মাসে অর্থের অভাবে চিকিৎসা করতে পারছেন না এমন খবর প্রকাশিত হয় বিভিন্ন গণমাধ্যমে। প্যারালাইসিস হয়ে যাওয়া লুৎফর রহমানের চিকিৎসার জন্য গত জুলাই মাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৩০ লাখ টাকা প্রদান করেছিলেন। লুৎফর রহমানের স্ত্রী মাজেদা রহমানের হাতে ৫ লাখ টাকার চেক এবং ২৫ লাখ টাকার সঞ্চয়পত্র তুলে দিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু কন্যা।


মরহুমের ছেলে তানভীর রহমান বলেন, আছর বাদ যশোর সম্মিলনী ইন্সটিউশন স্কুল মাঠে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
এক শোকবার্তায় জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদের কেন্দ্রীয় কার্যকরী সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা রবিউল আলম ও যশোর জেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা অশোক কুমার রায় বলেছেন, ‘মো. লুৎফর রহমান মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় গঠিত স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন। স্বাধীনতার সময় তার ভূমিকা এবং অবদানকে গভীর শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছি। তার বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা এবং শোকন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করছি।’

LEAVE A REPLY