সংক্ষিপ্ত কোয়ারেন্টিন, ফ্যামিলি ডিনারসহ আইপিএলে অনেক দাবি

13

ক্রীড়া ডেস্ক : আগামী ১৯ সেপ্টেম্বর থেকে সংযুক্ত আরব আমিরাতে শুরু হবে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) ১৩তম আসর। ওই আসরকে সামনে রেখে রূপরেখা তৈরি করতে গত রোববার বৈঠকে বসেছিল আইপিএল গভর্নিং কাউন্সিল। যেখানে আইপিএলের সূচি এবং স্বাস্থ্য বিধিসহ বেশ কিছু নতুন নিয়ম নির্ধারণ করা হয়েছে। তবে একাধিক নিয়ম নিয়ে আপত্তি তুলে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো এসব পুনঃবিবেচনার দাবি তুলেছে।
আইপিএল এর পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল যে, সংযুক্ত আরব আমিরাতে পৌঁছনোর পর ক্রিকেটারদের ছয় দিনের কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। কিন্তু ৬ দিনের পরিবর্তে তিন দিনের কোয়ারেন্টিন চেয়েছে আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো। একইসাথে নিষেধ করা হয়েছিল দলগত ও পারিবারিক নৈশভোজের ব্যাপারে। কিন্তু সেটির অনুমতিও চেয়েছে আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো।
বোর্ডের নির্দেশিকা অনুসারে মুরু শহরে পৌঁছনোর প্রথম, তৃতীয় ও ষষ্ঠ দিনে ক্রিকেটার ও সাপোর্ট স্টাফদের করোনা পরীক্ষা করা হবে। এ ছাড়া প্রতি পঞ্চম দিনে করোনা টেস্ট করা হবে তাদের। তাতে পাশ করলেই অনুশীলন শুরু করতে পারবে খেলোয়াড়রা। কিন্তু, ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো দ্রুতই খেলোয়াড়দের অনুশীলনে দেখতে চান। কারণ হিসেবে এক মুখপাত্র জানান, ‘অধিকাংশ ক্রিকেটারই গত কয়েক মাস ধরে গৃহবন্দি। তাদের ফিটনেস ও অনুশীলনের জন্য ব্যাট-বলের সাথে মানিয়ে নিতে দ্রুতই অনুশীলনে ফেরা প্রয়োজন।’
কোয়ারেন্টিন চলাকালীন ক্রিকেটাররা সতীর্থদের সাথেও যোগাযোগ করতে পারবেন না। তবে তিনটি কোভিড-১৯ টেস্টের পর সেই অনুমতি মিলবে। দলগুলো থাকবে আলাদা আলাদা হোটেলে। ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো আরও বলেছে, টানা ৮০দিন বায়ো-সুরক্ষায় থাকা সবার জন্যই বেশ কঠিন। তাই সময় কাটানোর জন্য গলফ খেলা ও পারিবারিক ডিনারের অনুমতি প্রয়োজন। হোটলের বাইরে থেকে খাবার আনানো যায় কি না, সেটাও জানতে চাওয়া হয়েছে। এছাড়া বিভিন্ন বাণিজ্যিক ও স্পসরের অনুষ্ঠানে ক্রিকেটাররা থাকতে পারবেন কি না, তা নিয়েও স্পষ্ট ধারণা চেয়েছে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো।

Previous articleবড় সংগ্রহের লক্ষ্যে দ্বিতীয় দিন শুরু করবেন বাবর-শান
Next articleমুশফিকদের সঙ্গী হতে ঢাকায় ফিরছেন মোস্তাফিজ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here