বাঘারপাড়ার যুদ্ধাপরাধ মামলার সাক্ষী অপহরণ মামলা আলোচিত ইউপি সদস্য আলম মোল্যাসহ ৭ জনের নামে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল

35

কল্যাণ রিপোর্ট : বাঘারপাড়ার যুদ্ধাপরাধ মামলার সাক্ষী অপহরণ মামলা আলোচিত ইউপি সদস্য ও আলম মোল্যাসহ ৭ জনের নামে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেছে সিআইডি যশোরের উপ-পুলিশ পরিদর্শক ফকরুল ইসলাম।
যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার যুদ্ধাপরাধী আমজাদ হোসেন মোল্যার মামলায় আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনালের সাক্ষী উপজেলার প্রেমচারা গ্রামের মৃত মান্দার মোল্যার ছেলে এহিয়ার রহমান মোল্যার উপর হামলা ও অপহরণ চেষ্টা এবং লুটপাট ঘটনা ঘটায় ইউপি সদস্য ও আলম মোল্যাসহ ৭ জন।
আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০১৮ সালের ৩০ জুন সকাল ৭ টার দিকে প্রেমচারা গ্রামের তৎকালীন পিডিকে স্কুলের পাশের চায়ের দোকানে দোকানদারী করাকালীন সময়ে যুদ্ধাপরাধীদের পক্ষের একদল সন্ত্রাসী এহিয়ার রহমানকে দোকান থেকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। এবং আমজাদ রাজাকারের ভাগ্নে একই গ্রামের সন্ত্রাসী জাহিদুল বিশ্বাসের বাড়িতে আটকে রাখে। এ সময় তাকে উদ্ধার করতে গেলে এহিয়ার রহমানের স্ত্রীর গালায় থাকা সোনার চেইন ছিনিয়ে নিয়ে তাড়িয়ে দেয়। পরবর্তীতে গ্রামবাসী একত্রিত হয়ে তাকে উদ্ধার করে। এ ঘটনায় এহিয়ার রহমান নিজে বাদী হয়ে বিজ্ঞ জুডিশিয়াল ম্যাজেস্ট্রট বাঘারপাড়া আলী আদালতে ১৮ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা করে। যার নং-সি.আর-১৭৭/২০১৮ খ্রি.।
পরবর্তীতে ২০১৯ সালের ১২ সেপ্টেম্বর আদালতের নির্দেশে সিআইডি যশোর মামলাটির তদন্ত শুরু করে। তদন্ত শেষে তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডি যশোরের উপ-পুলিশ পরিদর্শক ফকরুল ইসলাম ৭ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেছেন। গত ৩১ ডিসেম্বর আদালতে দেয়া অভিযোগপত্রে আসামি করা হয়েছে বাঘারপাড়া উপজেলার প্রেমচারা গ্রামের মৃত সৈয়দ আলী বিশ্বাসের ছেলে জাহিদুল বিশ্বাস ও জিল্লু বিশ্বাস, মৃত সোবহান মোল্লার ছেলে মাসুম, মৃত তফেল মোল্যার ছেলে ইউপি সদস্য আলম মোল্যা, মৃত শুকুর আলীর ছেলে আমীর হামজা, মৃত সামছুল হকের ছেলে শহিদুল ইসলাম, মৃত লতিফের ছেলে হালিম। এছাড়া তদন্তে অপর ১১ আসামির বিরুদ্ধে সাক্ষ্য প্রমাণ না পাওয়ায় তাদেরকে অব্যাহতি দেয়ার জন্য আদালতে আবেদন করেছেন।
উল্লেখ্য, অতি সম্প্রতি বাঘারপাড়া থানা পুলিশ ইউপি সদস্য আলম মোল্যাকে আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনালের সাক্ষীদের হয়রানির অভিযোগে আটক করে আদালতে চালান দেয়। পরে আদালত থেকে সে জামিন লাভ করে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here