সীমান্তবর্তী জেলা যশোরে ঊর্ধ্বমুখী করোনা সংক্রমণ কমাতে ‘লকডাউনের’ বিকল্প নেই : খুলনা ডিআইজি

16

কল্যাণ ডেস্ক : করোনায় দেশ ও নিজেকে বাঁচাতে হলে মাস্ক পরা, শারীরিক দূরত্ববিধি মেনে চলা এবং বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের না হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন খুলনা রেঞ্জের ডিআইজি ড. খন্দকার মহিদ উদ্দিন।

সোমবার (৫ জুলাই) দুপুরে যশোর জেলার বিভিন্ন পুলিশের চেকপোস্ট পরিদর্শন শেষে শহরের দড়াটানায় সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে যশোরবাসীকে তিনি এ আহ্বান জানান।

এ সময় তিনি বলেন, সীমান্তবর্তী জেলা যশোরে ঊর্ধ্বমুখী করোনা সংক্রমণ কমাতে ‘লকডাউনের’ বিকল্প নেই। মানুষের মধ্যে সচেতনতা বাড়াতে প্রতিদিনই মাঠ পর্যায়ে কাজ করছে পুলিশ। এই করোনা মোকাবিলায় গত ১৬ মাস ধরে পুলিশ অর্পিত দায়িত্ব পালন করে চলেছে। বর্তমান পরিস্থিতি মোকাবিলায় যশোরে ‘লকডাউন’ চলছে, বসানো হয়েছে চেকপোস্ট। পুলিশ সার্বক্ষণিক সেখানে দাঁড়িয়ে নজরদারি করছে।

বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া কাউকেই রাস্তায় চলাচল করতে দেওয়া হচ্ছে না। এরপরেও যদি কেউ আইন অমান্য করে রাস্তায় চলাচল করে, তার বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সরকার ঘোষিত এ কার্যক্রম বাস্তবায়নে পুলিশের তৎপরতা অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।

এ সময় তার সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন- যশোরের পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ারদার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) জাহাঙ্গীর আলম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক সার্কেল) বিল্লাল হোসাইনসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

এদিকে, গত ২৪ ঘণ্টায় যশোরে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ৬ জন ও উপসর্গ নিয়ে ১০ জনসহ মোট ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে।

এর আগে, রোববার আক্রান্ত হয়ে ও উপসর্গ নিয়ে মারা গিয়েছিল ১৭ জন। এছাড়াও এই সময়ে নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ২৮৬ জন। ৮২০ জনের নমুনা পরিক্ষা করে শনাক্তের এই সংখ্যা পাওয়া গেছে। এছাড়া যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাপসাতালে করোনা আক্রান্ত ও উপসর্গের রোগীদের চাপ অব্যাহত রয়েছে। ১৪০টি শয্যার বিপরীতে রোগী ভর্তি রয়েছেন ২১২ জন।

Previous articleযশোরে করোনা ও উপসর্গ নিয়ে রেকর্ড ১৭ জনের মৃত্যু
Next articleযশোরে আরও ১৬ জনের মৃত্যু

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here